For English Version
বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮
হোম জাতীয়

বাংলা চ্যানেল পাড়ি দিলেন ব্রিটিশ সাংবাদিক বেকি হর্সব্রো

Published : Sunday, 28 January, 2018 at 8:11 PM Count : 1610

কক্সবাজারের টেকনাফ শাহপরীর দ্বীপ ও সেন্টমার্টিন বাংলা চ্যানেল পাড়ি দিলেন ব্রিটিশ সাংবাদিক বেকি হর্সবো।  রোববার সকাল সাড়ে ৯ টায় শাহপরীর দ্বীপের জেটি ঘাট থেকে ব্রিটিশ সাংবাদিক বেকি হর্সব্রো, মুসা ইব্রাহীম ও মো. ওয়াছিয়ুর রহমানসহ ৩ জন সাঁতারু যাত্রা শুরু করেন।  চ্যানেলের ১৬.১ কিলোমিটার জলপথ ব্রিটিশ সাংবাদিক বেকি হর্সব্রো পাড়ি দিতে পারলেও মুসা ইব্রাহীম ও মো. ওয়াছিয়ুর রহমান পায়ে মাছের আঘাতের কারণে ১ ঘন্টার পর নৌকায় উঠে পড়েন।  আর পাড়ি দিতে পারেনি। এবারের সাঁতারে ৪ ঘণ্টা ১৫ মিনিটে বেকি হর্সব্রো সেন্টমার্টিন পৌঁছেন।  সাঁতারে দলনেতা হিসেবে ছিলেন, ওভারেস্ট জয়ী মুসা ইব্রাহীম। 

এ বাংলা চ্যানেল আবিষ্কার করেন কীর্তিমান ফটোগ্রাফার ও স্কুবা ডাইভার মরহুম কাজী হামিদুল হক।  ২০০৬ সালের ১৪ জানুয়ারি ঢাকা বেজ ক্যাম্পের তিনজন অ্যাডভেঞ্চার যুবক ফজলুল কবীর সিনা, লিপটন সরকার ও সালমান সাঈদ প্রথমবার এই চ্যানেল অতিক্রম করেন। এরই ধারাবাহিকতায় কাজী হামিদুল হকের স্মরণে '১৩তম বাংলা চ্যানেল সাঁতার' ২০১৮ এ আয়োজন করা হয়েছে।  

সাঁতার শেষে বেকি হর্সব্রো বলেন, বেকির বাংলা চ্যানেল পাড়ি দেওয়ার মূল উদ্দেশ্য বাংলাদেশে পানিতে ডুবে শিশু মৃত্যুর উচ্চহার সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ানো এবং শিশুদের সাঁতার প্রশিক্ষণের জন্য তহবিল সংগ্রহ করা।  এ ছাড়া তিনি বাংলা চ্যানেলকে ব্রিটিশদের কাছে সুপরিচিত করে তুলতে চান। পাশাপাশি বাংলাদেশকে বিশ্বের দরবারে ‘ক্রীড়াপ্রেমী’ দেশ হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিতে চান।
তিনি আরো বলেন, এবার তিনি সফল হয়েছেন, তাই তিনি আগামীতে তাঁর যুক্তরাজ্যের সাঁতারপ্রেমী বন্ধুদের সঙ্গে নিয়ে আবার বাংলাদেশে আসবেন। তাঁর জন্য এটি একটি চমকপ্রদ মুহূর্ত। এটা তাঁর ব্যক্তিগত চ্যালেঞ্জ।

এভারেস্ট একাডেমির আয়োজনকারীর ম্যানেজার ইমরান হোসেন ওরফে দুলু বলেন, বাংলা চ্যানেল পাড়ি দেওয়া ব্রিটিশ সাংবাদিক বেকি এপির এশিয়া প্রযোজক হিসেবে লন্ডন অফিসে কর্মরত।  তিনি সাঁতারের একজন দক্ষ প্রশিক্ষক। এর আগে তাঁর টানা নয় কিলোমিটার সাঁতারের রেকর্ড থাকলেও টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিনসের ১৬ কিলোমিটার
দীর্ঘ নৌপথ পাড়ি দিয়ে তিনি নতুন রেকর্ড গড়লেন।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশে পানিতে ডুবে যে এতে শিশু মারা যায়, তা আমার অজানা ছিল। আমি একজন উদ্যোক্তা হিসেবে এটি জানার পর এগিয়ে এসেছি। ভবিষ্যতেও এ ধরনের কার্যক্রমের সঙ্গে যুক্ত থাকার আশা রাখি।

এফআই/এইচএস






« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60, Advertisement: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft