For English Version
শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারি, ২০১৮
হোম জাতীয়

স্বাগত নতুন দিনের

Published : Monday, 1 January, 2018 at 9:37 AM Count : 156

স্বাগত ২০১৮। স্বাগত নতুন বছর। রাত ১২টার পর থেকেই বিশ্ব মেতে ওঠে নতুন বছরকে স্বাগত জানানোর আনন্দে।

কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে ইংরেজি পুরনো বছরকে বিদায় ও নতুন বছরকে স্বাগত জানিয়েছে দেশবাসী। রাত ১২টা বাজার সঙ্গে সঙ্গে আকাশে ঝলকে ওঠে প্রচুর আতশবাজি। উড়তে দেখা যায় প্রচুর ফানুসও।

দুঃস্বপ্নকে ভুলে নতুন করে বুক বাঁধার এটাই সেরা সময়। সেরা অর্জনকে শ্রেষ্ঠত্বে রূপ দেওয়ার এটাই সময়। নতুন বছর এ কারণেই বেশ তাৎপর্যপূর্ণ।

বাংলাদেশে ইংরেজি নববর্ষের আয়োজন আসে ভিন্ন আমেজ নিয়ে। জানুয়ারি মানেই শীতের পিঠাপুলির আয়োজন। গ্রামের পথ ধরে আসে হরেক রকমের শীতের সবজি। ঘরে ঘরে বাহারি নকশীকাঁথার বিলাসিতা। বাংলাদেশে নতুন বছর মানেই শীতের সকালে কুয়াশা ভেদ করে আসার নরম রোদ। শিশুর হাসির মতই নিষ্পাপ সেই রোদের তাপ। নতুন সম্ভাবনা নিয়ে ভাবার এর চেয়ে সেরা সময় আর কীইবা হতে পারে?

বাংলাদেশে ইংরেজি নববর্ষ মানেই স্কুলে নতুন বইয়ের গন্ধ। নতুন ক্লাসে উঠার আনন্দ। নব উদ্যমে নিজের পড়াশোনা গোছানোর প্রেরণা। নতুন বছরে শিশু-কিশোরদের হাতে আসবে নতুন বই। আবারও মেতে উঠা নতুন বইয়ের পাতায় পাতায়। গ্রামবাংলায় থাকবে নানা খেলার আয়োজন, নানা ধরণের মেলার আসর।

বার্তা সংস্থা বাসস জানিয়েছে, বাংলাদেশে ২০১৭ সাল ছিল বিভিন্ন ক্ষেত্রে অর্জনের বছর। এ বছর রাজনীতি, অর্থনীতি, কৃষি, জঙ্গি দমন এবং তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বাংলাদেশ আশাতীত সাফল্য অর্জনসহ মধ্য আয়ের দেশে এগিয়ে যাওয়ার পথে উন্নীত হয়েছে।

এ বছর বিশ্ব সূচকেও বাংলাদেশের অনেক সাফল্য রয়েছে। এছাড়াও রাজনীতি এবং অর্থনীতি পরিবেশ ছিল শান্তিপূর্ণ। রাজনৈতিক পরিস্থিতি শান্ত থাকায় অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি অর্জনেও এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ।

এদিকে, রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নববর্ষ ২০১৮ উপলক্ষে বাণী প্রদান করেছেন।

নববর্ষ উপলক্ষে বাণী দিয়েছেন বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

তবে নিরাপত্তা ব্যবস্থার ক্ষেত্রে কঠোরতার কারণে রোববার রাত ১২টার আগেই রাজধানীর সড়কগুলো তুলনামূলক ফাঁকা হয়ে যায়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও গুলশান এলাকায় কেবল বিপুলসংখ্যক র‍্যাব-পুলিশ আর গণমাধ্যমকর্মীদেরই দেখা যায়। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় র‍্যাবের হেলিকপ্টার টহল চোখে পড়ে। এসব নিয়ে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

রাতে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, গুলশান, বনানী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসসহ কয়েকটি এলাকায় বহিরাগতদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা থাকায় উৎসব ব্যাপক হয়ে ওঠেনি। রাস্তার মোড়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে নিরাপত্তা দিতে দেখা গেছে। র‌্যাবের ডগ স্কোয়াড সন্দেহভাজন গাড়ি তল্লাশি করেছে। গুরুত্বপূর্ণ ভবনগুলোতেও ছিল পুলিশের কঠোর নিরাপত্তা।

রাত ৮টার দিকে গুলশান ২ নম্বর গোলচত্বরে র‍্যাব নতুন বছরের নিরাপত্তা নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে। সেখানে র‍্যাবের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক কর্নেল আনোয়ার লতিফ খান বলেন, সারারাত ধরে র‍্যাবের হেলিকপ্টার টহল দেবে।

রাত সোয়া ৯টার দিকে বিপুলসংখ্যক পুলিশ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পরিদর্শনে আসেন ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। সেখানে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, সম্প্রতি বিভিন্ন দেশে যে আত্মঘাতী জঙ্গি হামলা হয়েছে, সেগুলো বিবেচনা করে জনগণের নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

-এমএ








« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60, Advertisement: 9513663
E-mail: info@dailyobserverbd.com, news@dailyobserverbd.com, advertisement@dailyobserverbd.com,   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft