For English Version
শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭
হোম সারাদেশ

রাজশাহীতে নির্যাতন সইতে না পেরে গৃহবধূর আত্মহত্যা

Published : Wednesday, 6 December, 2017 at 6:25 PM Count : 41

স্বামীর নির্যাতন সইতে না পেরে আদুরি বেগম (২৫) নামের এক গৃহবধূ বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। গত মঙ্গলবার বিকেলে রাজশাহী মহানগরীর মতিহার থানাধীন চারঘাট উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত গৃহবধূ গোবিন্দপাড়া গ্রামের মৃত সিদ্দিক আলীর মেয়ে।

গৃহবধূর নিকট আত্মীয় ও ঘটনা সূত্রে জানা গেছে, অদুরির বাবা সিদ্দিক আলীর মৃত্যুর পরে অনেক সম্পদ তার মেয়ে আদুরি ও তার মায়ের নামে রেখে যান। এরপর আদুরির মায়ের দ্বিতীয় বিয়ে হয়। ফলে আদুরি তার নানির বাড়ি রাজশাহী দূর্গাপুর উপজেলার শালগড়িয়া গ্রামে থাকতেন। বছর খানেক পরে আদুরির সৎ পিতা নাজিমদ্দিনের ছেলে মাইনুল ইসলামের সঙ্গে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। কিন্তুু আদুরির মামারা বিয়ে দিতে অস্বীকার করে।

কিছু দিন পরে আদুরির সৎ পিতা নাজিমদ্দিনের বুদ্ধিতে আদুরির মা দূর্গাপুর তার মামা বাড়ি থেকে কৌশলে রাজশাহী কোর্টে নিয়ে এসে মায়ের ২য় স্বামীর ছেলে মাইনুল ইসলামের সঙ্গে বিয়ে দেয়। বিয়ের কিছু দিন পর থেকে আদুরির স্বামী মাইনুল ইসলাম তার বাবার রেখে যাওয়া তার নামের জমি বিক্রয় করতে চাপ দেয়। স্বামীর কথা মতো আদুরি তার মৃত বাবার লিখে দেয়া জমি বিক্রয়ের একলক্ষ টাকা মাইনুলকে দেন। এরই মধ্যে একটি পুত্র সন্তান হয়। যার বয়স চার বছর।

নাজিমুদ্দিন ঘর করার জন্য আবারো জমি বিক্রয় করার জন্য বলে। কিন্তুু আদুরি জমি বিক্রি করতে অস্বীকার করে। এতে আদুরির ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালায় তার স্বামী। এরই জের ধরে গত সোমবার সন্ধায় গোবিন্দপাড়া গ্রামে স্বামীর বাড়িতে থাকা অবস্থায় আদুরির ভাসুরের সঙ্গে কথা কাটাকাটির এক পর্যায় তাকে মারপিট করে। ভাসুর আদুরিকে অন্যায় ভাবে মারপিট করেছে সেই নালিশ দিতে যায় তার মা ও শশুর নাজিমদ্দিনের কাছে। নালিশ শুনে উল্টা আদুরিকে চড়মারে তার মা। নিরুপায় হয়ে আদুরি তার স্বামীর কাছে নালিশ জানালে উল্টা স্বামী মাইনুলও বেধড়ক মারপিট করে তাকে। স্বামীর হাতে মার খেয়ে রাগ করে বাড়ি ছেড়ে ওই গ্রামে চাচাতো বোনের বাড়িতে আশ্রয় নেয়। এ খবর পেয়ে আদুরির স্বামী, ভাসুর, শশুর, দেবর, আদুরিকে নিজ বাড়িতে নিয়ে এসে আবারো মারপিট করে। সোমবার সন্ধ্যায় আদুরি বিষপানে আত্মহত্যা করে।

পরে আদুরিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রাত ৮ টার দিকে রামেক হাসপাতালে জরুরী বিভাগে নিয়ে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। সোমবার দিবাগত রাত ১ টা পর্যন্ত অপেক্ষার পরে আদোরির মরোদেহ রামেক হাসপাতালের মর্গে রেখে স্বামী মাইনুলসহ সবাই বাড়ি চলে যায়। গতকাল বুধবার সকালে আদুরির বড় ভাই আজিজুল হক আদুরির মরদেহ নেয়ার জন্য রামেক হাসপাতালে যোগাযোগ করেন। এর আগে সকালে আদোরির ভাসুর রামেক হাসপাতালে আদোরির মৃত্যু সাটিফিকেট নিয়ে নগরীর মতিহার থানায় হাজির হয়। এসময় থানায় উপস্থিত হয়ে আদোরির খালু, বাড় ভাই, আদোরির মা কে মামলা করার জন্য বাদি হতে বলে নিহত আদোরির মা মামলায় বাদি হতে অস্বীকার করে। মঙ্গলবার আদুরির মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে মাইনুলের পারিবারিক কবর স্থানে আদুরির দাফন সম্পন্ন হয়।

আদুরির বড় ভাই আজিজুল হক জানান, যৌতুকের টাকা দিতে অস্বীকার করায় আমার বোন আদুরিকে নির্যাতন করতো। সবার নির্যাতন সইতে না পেরে ক্ষোভে বিষপান করে আত্মহত্যা করতে বাধ্য করা হয়েছে তাকে। এই ঘটনার সঙ্গে আমার মা নিজেই জড়িত বলে অভিযোগ করেন নিহত গৃহবধূর বড় ভাই আজিজুল অভিযোগ করেন।

এই ঘটনায় নগরীর মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদি হাসান জানান, গৃহবধূ মৃত্যুর ঘটনায় থানায় কেউ অভিযোগ করেনি। কেউ যদি অভিযোগ করে তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি আরো বলেন, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিহত গৃহবধূর ময়না তদন্ত রিপোর্ট পেলে বোঝা যাবে বলে জানান তিনি।

আরএইচএফ/এইচএস








« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60, Advertisement: 9513663
E-mail: info@dailyobserverbd.com, news@dailyobserverbd.com, advertisement@dailyobserverbd.com,   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft