For English Version
শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৭
হোম সারাদেশ

'শান্তিচুক্তি বাস্তবায়নে সন্তু লারমার সঙ্গে বৈঠক হবে'

Published : Monday, 4 December, 2017 at 6:16 PM Count : 127

পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি প্রতিষ্ঠায় জনসংহতি সমিতির চেয়ারম্যান সন্তু লারমার সঙ্গে বৈঠক করা হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, 'পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি প্রতিষ্ঠায় ৭২টি চুক্তির মধ্যে অনেকগুলো চুক্তি ইতোমধ্যে বাস্তবায়ন হয়েছে। যেগুলো এখনও বাস্তবায়ন হয়নি সেগুলো বাস্তবায়নের উপায় বের করার জন্য জনসংহতি সমিতির চেয়ারম্যান সন্তু লারমার সঙ্গে বৈঠক করা হবে।'

সোমবার সকালে কক্সবাজারের একটি তারকা হোটেলে রোহিঙ্গাদের জন্য দেওয়া বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংগঠনের অনুদানের টাকা গ্রহণ শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, 'শান্তিচুক্তির আগে এবং পরের অবস্থা পর্যালোচনা করলে পাহাড়ে উন্নয়নের দৃশ্য সহজে বুঝা যাবে। এখন পাহাড়ে রাস্তাঘাট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বিদ্যুৎসহ সবকিছুর ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। এখন পার্বত্য চট্টগ্রামের একমাত্র সমস্যা হচ্ছে ভূমি। এই সমস্যা সমাধানের জন্য সরকারের আন্তরিকতার অভাব নেই।'

তিনি আরও বলেন, 'সোমবার সকালে জনসংহতি সমিতির চেয়ারম্যান সন্তু লারমার সঙ্গে মুঠোফোনে তিনি কথা বলেছেন। শিগগিরই তারা একসঙ্গে বৈঠক করবেন। সেখানে যে চুক্তিগুলো বাস্তবায়ন হয়নি সেগুলো কিভাবে দ্রুত বাস্তবায়ন করা যায় সে বিষয়ে তারা আলোচনা করবেন।'

ওবায়দুল কাদের বলেন, 'এই মুহুর্তে বিএনপির কথা মালার চাতুরি ছাড়া আর কোনো পুঁজি নেই। যতই দিন যাচ্ছে, ততই তারা মিথ্যাচার ও স্ট্যান্ডবাজি করে বেড়াচ্ছে। এছাড়া তাদের আর কোনো কাজ নেই। তারা নিজেরাও জানে আগামি নির্বাচনে না এলে তাদের অবস্থা হবে মুসলিম লীগের মত।'

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, 'প্রত্যেক দেশে সীমান্ত সড়ক রয়েছে। নিরাপত্তার জন্য এটি অবশ্যই প্রয়োজন। সেনাবাহিনী ইতোমধ্যে প্রক্রিয়া শুরু করেছে। শিগগিরই সীমান্ত সড়ক বাস্তবায়ন হবে।'

সাম্প্রতিক সময়ে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে মৌলভী ছদ্দবেশে কিছু লোক রোহিঙ্গা যুবতীদের নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে। ইতোমধ্যে বেশ কয়েকজন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে ধরা পড়েছে। সর্বশেষ গত শুক্রবার রোহিঙ্গা নারী পাচারের সময় দুই মৌলভীকে আটক করা হয়। এসব রোহিঙ্গা যুবতীদের জঙ্গি কার্যক্রমে জড়ানোর জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে বিভিন্ন সূত্র দাবি করছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, 'বিষয়টি প্রশাসনের নজরে রয়েছে। এটি কঠোরভাবে নজরদারি করা হচ্ছে। কিছু দুর্বৃত্ত ইতোমধ্যে ধরাও পড়েছে।'

তিনি বলেন, 'যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন করা হলেও একদিনে সব রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানো সম্ভব নয়। এটি একটি দীর্ঘমেয়াদি প্রক্রিয়া। এটি যে খুব তাড়াতাড়ি শেষ হবে সেটি বলা যাবে না। কিন্তু রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে সরকার ব্যর্থ হবে না।  প্রধানমন্ত্রী নিজস্ব অর্থায়নে যেমন পদ্মাসেতু নির্মাণ করছেন, তেমনি সাহসের সঙ্গে তিনি রোহিঙ্গা সংকট মোকাবেলা করছেন।'

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেন, পুলিশ সুপার ড. একেএম ইকবাল হোসেন, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান, সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, আশেক উল্লাহ রফিক, আব্দুর রহমান বদি, সামসুল হক চৌধুরী এমপি, একরামুল চৌধুরী এমপি, কক্সবাজার পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নজিবুল ইসলাম ও আওয়ামী লীগ নেতা এবি ছিদ্দিক খোকন।

এর আগে রোহিঙ্গাদের জন্য সামশুল হক চৌধুরী এমপি ২০ লাখ, একরামুল করিম চৌধুরী এমপি ২০ লাখ, আওয়ামী লীগের সদস্য খন্দকার রুহুল আমিন ১০ লাখ, ডব্লিওটিসির পক্ষ থেকে ২০ লাখ, হাতিয়ার আওয়ামী লীগ নেতা মাহমুদ আলী রাতুলের পক্ষ থেকে ১০ লাখ ও এয়ারবেল গ্রুপের পক্ষ থেকে ৪ লাখ টাকার ওষুধ সামগ্রী গ্রহণ করেন তিনি।

-এফআই/এমএ








« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60, Advertisement: 9513663
E-mail: info@dailyobserverbd.com, news@dailyobserverbd.com, advertisement@dailyobserverbd.com,   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft